1. admin@sottosongbad.com : admin :
দুই মেয়ে বি'ক্রি করে বিদ্যুৎ বিল ও ঋণ পরিশোধ করলেন বাবা - রংপুর বার্তা
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বারহাট্টায় বিএনপির ২৬২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা -আটক ১ পাটগ্রামে কর্মসৃজন প্রকল্প কাজের উদ্বোধন আগামী ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ২৭তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা চাকরি দেয়ার জন্য টাকা নিয়ে অন্যজনকে নিয়োগ, মাদ্রাসায় তালা সুন্দরগঞ্জ বাজার দোকান মালিক সমিতির নির্বাচনে-সভাপতি-মিজান, সম্পাদক-লেলিন হাতীবান্ধায় সীমান্তে এক যুবককে বিএসএফের বন্দুকের বাট দিয়ে পিটিয়ে মারার অভিযোগ হানিফ কোচের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেল বাবা-মা ও মেয়ের সিরাজগঞ্জে দিনব্যাপী হজ প্রশিক্ষণ ও হাজী সমাবেশ অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামের নন্দনকানন রিয়াজউদ্দিন বাজারে ১৪০০ জনের ফ্রি ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় সুজানগরে চুরি হওয়ার পাঁচ ঘন্টার মধ্যে চোর সহ চুরিকৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার

দুই মেয়ে বি’ক্রি করে বিদ্যুৎ বিল ও ঋণ পরিশোধ করলেন বাবা

  • আপডেট সময় : বুধবার, ২০ জুলাই, ২০২২
  • ১৮২ বার পঠিত

দুই মেয়ে বি’ক্রি করে বিদ্যুৎ বিল ও ঋণ পরিশোধ করলেন বাবা

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুই সন্তানকে ৪০ হাজার টাকা করে মোট ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন এমরান হোসেন। তার দুই স্ত্রী। দ্বিতীয় স্ত্রীকে চট্টগ্রামের একটি তৈরি পোশাক কারখানায় চাকরির জন্য পাঠিয়ে তার গর্ভে জন্ম নেওয়া দুই সন্তানকে কৌশলে বিক্রি করে দেন এমরান।

সন্তান হারিয়ে পাগলপ্রায় জান্নাত বেগম গতকাল মঙ্গলবার তার নিজ বাড়িতে বসে বলেন, ‘আমার স্বামী এমরান হোসেন আমাকে চট্টগ্রামে পাঠানোর পর তার প্রথম স্ত্রী ইয়াছমিনের কাছে আমার দুই মেয়েকে নিয়ে রাখে। সেখান থেকে পরে কৌশলে মেয়েদের বিক্রি করে দেয়। সন্তানদের ফিরিয়ে আনার জন্য চাপ দিলে গত এক বছর ধরে বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে সন্তানদের ফিরে আনবে বলে সময় পার করে আসছে আমার স্বামী। আমি আমার সন্তানদের আমার কোলে ফেরত চাই।’ সন্তানদের ফিরে পেতে স্থানীয় প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের সহায়তাও কামনা করেন তিনি।

এ ব্যাপারে এমরান হোসেন জানান, ছোট মেয়ে রিয়াকে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার কলাবাগান মহল্লার এক পরিবারে বিক্রি করেছেন। আর এতে তাকে সহযোগিতা করেন প্রত্যাপপুরের পল্লী চিকিৎসক আমেনা বেগম। আর বড় মেয়ে ইভাকে বিক্রি করেন চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া পাকিস্তান বাজার এলাকার একটি পরিবারে। এ কাজে সহযোগিতা করেন নাটেহরা গ্রামের বাসিন্দা কামরুল ইসলাম। তার বোনের আত্মীয়রা ওই সন্তানকে নিয়েছেন।

দুই শিশুসন্তানকে বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে এমরান হোসেনের প্রথম স্ত্রী ইয়াছমিন জানান, তার স্বামী দুই কন্যাসন্তানকে বিক্রি করেছেন জানেন, কিন্তু কোথায় বিক্রি করা হয়েছে তা জানেন না।

নিজের শিশুসন্তানদের বাবা বিক্রি করে দিয়েছেন এমন তথ্য জানার পর এমরান হোসেনের ওপর ক্ষুব্ধ নাটেহরা গ্রামের বাসিন্দারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামটির এক বাসিন্দা বলেন, ‘রিয়া ও ইভা দুই বোন। তাদের মা জানে না তারা এখন কোথায়। সন্তান জন্ম দেওয়ার পর কিছুদিন লালনপালন করলেও তাদের একটি ছবি বা কোনো স্মৃতিও নেই। শিশু দুটি যেখানে বিক্রি হয়েছে, হয়তো তারা সেখানে ভালো আছে। অথচ তাদের জন্মধারিণী মা কে তা তাদের জানার সৌভাগ্য হলো না। বাবার অভাবের অর্থের জোগানদাতা হয়েছে তারা, কিন্তু রক্তের বন্ধন ছিন্ন করে!’

সন্তান বিক্রির বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাননি বলে জানিয়েছেন হাজীগঞ্জ থানার ওসি মো: জোবাইর সৈয়দ। তিনি দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আমাদের কাছে এ ব্যাপারে অভিযোগ নিয়ে কেউ আসেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

প্রায় একই ধরনের কথা বলেছেন হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: রাশেদুল ইসলাম। তিনি গতকাল বিকেলে বলেন, ‘সন্তান বিক্রির ঘটনাটি আমি অবগত ছিলাম না। কোনো পক্ষই আমাদের কিছু জানায়নি। যেহেতু এখন জানতে পেরেছি, খোঁজখবর নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত  রংপুর বার্তা- ২০২২
Theme Customized By Dev Joynal