1. admin@sottosongbad.com : admin :
হাতীবান্ধায় যুবতীকে মারধর করলেন মসজিদের মুয়াজ্জিন - রংপুর বার্তা
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

হাতীবান্ধায় যুবতীকে মারধর করলেন মসজিদের মুয়াজ্জিন

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৩০ আগস্ট, ২০২২
  • ১১২ বার পঠিত

হাতীবান্ধায় যুবতীকে মারধর করলেন মসজিদের মুয়াজ্জিন

আমিনুর রহমান
নিজস্ব সংবাদমাধ্যমঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে ছাগল ক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে লিপা সুলতানা নামে গৃহবধূকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ফয়জুর রহমান নামে মসজিদের এক মোয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় মারধরের শিকার লিপা সুলতানার বাবা বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় ফয়জুর রহমানকে আসামী করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত ফয়জুর রহমান স্থানীয় একটি মসজিদের মোয়াজ্জিন। এলাকাবাসীর কাছে ফয়জুর হুজুর নামে পরিচিতি তিনি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে অভিযুক্ত ফয়জুরের ছাগল ভুক্তভোগী লিপা সুলতানার বাবার আমন ধানের চারা খাওয়া নিয়ে ফয়জুর হুজুরের সঙ্গে তাদের বাকবিতন্ডা হয়। এমতাবস্থায় গত রোববার বিকালে স্থানীয় মসজিদ থেকে আছরের নামায শেষে বাড়ি দিকে যাচ্ছিলেন হুজুর ফয়জুর। এ সময় ফয়জুর হুজুরের বাড়ির পাশ দিয়ে ভুক্তভোগী লিপা ও তার বোন ওই রাস্তা দিয়ে আসছিলো। তাদের পথ রোধ করেন হুজুর ফয়জুল। এ সময় ছাগল ক্ষেত খাওয়ার ঘটনা নিয়ে তাদের মাঝে কথা-কাটাকাটি হয়। এর একপর্যায়ে ভুক্তভোগী লিপার চুলের মুঠি ধরে তাকে বেধড়ক মারধর করে হুজুর ফয়জুর। শুধু তা-ই নয় তাদের জখম করার উদ্দেশ্যে নিজ বাড়ি হতে কাস্তে নিয়ে আসে ওই হুজুর।

অভিযোগ উঠেছে, অভিযুক্ত ওই হুজুর দু’বোনের পথ আটকিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এর একপর্যায়ে লিপা সুলতানার ওপর অতর্কিত হামলা চালায় তিনি৷ এতে নাক ফেটে রক্তক্ষরণ শুরু হয় লিপা সুলতানার৷ পরে চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকাবাসী অনেকেই জানান, ফয়জুর একটি মসজিদের মুয়াজ্জিন কিন্তু তার ব্যবহার খুবিই খারাপ, তিনি মেয়েটিকে অশ্লীলভাষা ব্যবহার না করলেও পারতেন শুধু তাই নয় একজন যুবতী মেয়ের গায়ে তিনি হাত তুলেছেন।আমরা এর বিচার দাবী করছি।

অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত ফয়জুর রহমান বলেন, আমার সাথে মেয়েটির কথা কাটাকাটি হয়েছে কিন্তু আমি তার গায়ে হাত তুলিনি। আপনি এত অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করেছেন কেন মেয়েটিকে এর কোন সঠিক উত্তর তিনি দিতে পারেন নি।

এবিষয়ে হাতীবান্ধা থানার অফিসার ইনচার্জ
শাহা আলম বলেন, ভুক্তভোগী মেয়েটির বাবা একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত  রংপুর বার্তা- ২০২২
Theme Customized By Dev Joynal